অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে যুবকের মৃত্যু

ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধিঃ অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে টোকন খলিফা (৫০) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলার কালামৃধা ইউনিয়নের আট্টা ভাষড়া গ্রামের মৃত: খালেক খলিফার ছোট পুত্র।

টোকন খলিফার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ২১ সেপ্টেম্বর’২০১৮ শুক্রবার বিকাল ৪ টায় সে তার বড় পুত্র রুবেল খলিফা (২৬) কে কাতারের উদ্দেশ্যে ঢাকা আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছে দিয়ে ঢাকায় তার ভাতিজা ফরহাদের বাসায় বেড়াতে যায়। পরেরদিন শনিবার সকালে সে ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসার জন্য রওয়ানা করে। মাওয়া ফেরিঘাট পার হয়ে লোকাল গাড়িতে চড়ে ভাঙ্গা আসার পথে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে জ্ঞান হারায়। অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা টোকন খলিফার পরিহিত লুঙ্গিতে লুকিয়ে রাখা ১৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে সটকে পড়ে। লোকাল গাড়িটি ভাঙ্গা বিশ্বরোডের মোড়ে পৌঁছালে গাড়ি থেকে সকল যাত্রী নেমে গেলেও টোকন খলিফা রয়ে যায়। বিষয়টি গাড়ির ষ্টাফরা টের পেয়ে টোকনের পকেটে রাখা মোবাইল ফোন দিয়ে তার স্বজনদের খবর দেয়। এ সময় গাড়ির ষ্টাফদের পরামর্শে স্বজনরা তাকে নিকটস্থ হাসপাতালে না নিয়ে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যায়। বিকালে টোকন খলিফার শারিরিক অবস্থার অবনতি হলে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক ও জাকের পার্টি নেতা মো: বায়েজিদুর রহমান এর পরামর্শে তার ভাই রেকান খলিফা তাকে ভাঙ্গা সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু এখানেও তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক টোকনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। সেখানে চিকিৎসা দেবার পূর্বেই টোকন খলিফার মৃত্যু হয়।

এদিকে টোকন খলিফার পুত্র রুবেল খলিফা কাতারে পৌঁছেই বাবার এমন অকাল মৃত্যুর খবরে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। টোকন খলিফা মৃত্যুকালে ২ পুত্র, ২ কন্যা, ১ স্ত্রীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে টোকন খলিফার অকাল মৃত্যুর খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। রবিবার বাদ আসর ময়নাতদন্ত ছাড়াই টোকনের লাশ তার গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য ইদানিং কাওড়াকান্দি ফেরিঘাট থেকে ভাঙ্গা বিশ্বরোডের মোড় পর্যন্ত অজ্ঞান পার্টির দৌরাত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে এদের খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছে সাধারণ যাত্রীরা।