রাজনীতি

কর্মীকে বাঁচালেন ইশরাক, ভিডিও ভাইরাল

রাজধানীতে বিএনপির সমাবেশের আগে ও পরে নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আট পুলিশ সদস্যসহ আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। আটক করা হয়েছে অন্তত ৫০ জনকে। প্রেসক্লাব চত্বর যেন এক রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

এ সময় লাঠিচার্জে আহত হয়ে আটক এক রক্তাক্ত ছাত্রদল নেতাকে ছিনিয়ে নেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী ইশরাক হোসেন। এমন একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। এসময় ইশরাক হোসেন নিজেও আহত হন।

দুপুর ১২টার দিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন যখন বক্তব্য রাখছিলেন, তখন আশপাশে পুলিশের উপস্থিতি দেখে বক্তব্য শেষ হওয়ার আগে ভীত হয়ে সমাবেশস্থল ছেড়ে যেতে থাকেন নেতাকর্মীরা। এ সময় প্রেসক্লাবের ভেতর থেকে বিএনপি কর্মীদের ছুড়ে দেওয়া একটি ইটের টুকরা আঘাত করে এক পুলিশ সদস্যের মাথায়। এরপরই শুরু হয় এই ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া আর ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা।

ভিডিওটি ইশরাকের ফেসবুক পেজে আপলোড করা হলে মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। ক্যাপশনে ইশরাক লেখেন, ‘লাঠিচার্জ অথবা কামানের গোলা চার্জ, যেটাই হোক জান থাকতে আমাদের একজন কর্মী সমর্থককেও নিয়ে যেতে দিবো না এটাই হোক আগামী দিনের সংকল্প।’ ভিডিওটি প্রচারের প্রথম দুই ঘণ্টায় পর্যন্ত রিঅ্যাক্ট পড়েছে ৪৪ হাজারের বেশি। যেখানে মন্তব্য করেছেন সাড়ে ৪ হাজারের বেশি মানুষ।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন: https://fb.watch/3DBKaytPaA/

মো. ইব্রাহিম নামে একজন লিখেছেন, যদিও আমি আওয়ামী লীগের সমর্থক তবুও আপনাকে ভালোলাগে। প্রতিটি নেতার আপনার থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। তরুণ প্রজন্মের হাতে আগামীর দেশ হবে নিরাপদ।

ইয়াসিন মিয়া মন্তব্য করেছেন, এমন কর্মীবান্ধব নেতা বাংলাদেশের প্রতিটা দলে তৈরি হোক। যাতে করে কর্মীরা বিপদে পড়লে নেতাকে পাশে পায়।

প্রসঙ্গত, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ‘বীর উত্তম’ খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এমন আরো তথ্য পেতে চোখ রাখুন: https://www.facebook.com/rajtvbd

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button