জাতীয়স্বাস্থ্য
Trending

লকডাউন নিয়ে রাজটিভির জনমত জরিপ

আগামী ৫ই আগস্টের পর চলমান কঠোর বিধিনিষেধ তুলে দেয়া ঠিক হবে কি?  

 

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ২০ হাজার ৯১৬ জনে। রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে শনিবার করোনায় ২১৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল।একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে আরও ১৪ হাজার ৮৪৪ জন। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১২ লাখ ৬৪ হাজার ৩২৮ জনে।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউনের মতো বিধিনিষেধ আরোপ করা হলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় স্বল্প আয়ের এবং অনানুষ্ঠানিক খাতের মানুষেরা। তারা একদম বসে যায়। রাস্তার পাশে ছোটখাটো রেস্তোরাঁ ও চায়ের দোকানে বন্ধ। এতে দিন আনে দিন খায় মানুষেরাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

 

 

আমাদের দেশে বিধিনিষেধ পরিকল্পিতভাবে করা হয় না, যথেষ্ট প্রস্তুতি থাকে না।সার্বিকভাবে লকডাউন স্থায়ী সমাধান নয়, সম্ভবও নয়। করোনার যাত্রা অনিশ্চিত। স্বাস্থ্যবিধি মানানোতে বেশি জোর দিতে হবে। অতিদরিদ্রদের জন্য নগদ সরাসরি আর্থিক ও খাদ্যসহায়তা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। এই অতিমারির সময়ে বাজেট ঘাটতি বাড়িয়ে হলেও এই অর্থ ব্যয় করতেই হবে। গতবার কাজ হারিয়ে শহর থেকে যারা গ্রামে চলে গিয়েছিল, তারা সরকারি সহায়তা পায়নি। কারণ, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির অতিদরিদ্রদের তালিকায় তাদের নাম নেই।

এমন পরিস্থিতিতে রাজটিভি আয়োজন করেছিলো এক জনমত জরিপের। যেখানে অংশগ্রহণ করেছেন প্রায় দশ হাজারের বেশী দর্শক।

লকডাউনের পক্ষে বিপক্ষে এসেছে নানা মতামত। এতে অংশগ্রহণ করেছেন চিকিৎসক, ছাত্র, রাজনৈতিক পরিমণ্ডলের মানুষসহ সমাজের বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষজন। এরই কিছু চিত্র তুলে ধরা হলো।

 

 

উপরের এই মতামত থেকেই বোঝা যাচ্ছে যে, ৫ তারিখের পরের সিদ্বান্ত নিয়ে মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া আছে। তবে লকডাউন না দিয়ে, স্বাস্থবিধি মেনে স্বাভাবিক জীবন যাত্রায় ফিরে আসার মতামত অধিকাংশের।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button