জাতীয়

১২ হাজার থেকে বেড়ে ২০ হাজার হচ্ছে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা

মুজিব বর্ষের উপহার হিসেবে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ১২ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০ হাজার টাকা করার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার দুপুরে গণভবন থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ইলেক্ট্রনিক পদ্ধতিতে বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজ থেকে মুক্তি যোদ্ধাদের আর ৩ মাস পরপর ব্যাংক থেকে ভাতা সংগ্রহ করতে হবে না। প্রত্যেকের এক্যাউন্টে অনলাইন পদ্ধতিতে প্রতি মাসে ভাতা পৌঁছে যাবে।

মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের বৈঠকে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মুজিব বর্ষের উপহার হিসেবে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাড়ানোর ঘোষণা দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ১২ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিভিন্ন পর্যায়ের ভাতা যারা পেতেন তাদেরকে এককাতারে নিয়ে শিগগিরি সবার ভাতা ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হবে।

বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধারদের উন্নয়নে সরকারের নানা পদক্ষেপ তুলে ধরে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৩০ হাজার ঘর তৈরি করা হচ্ছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া ৪৭০ উপজেলায় ৩ তলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করার কথাও জানান তিনি।

সরকারপ্রধান বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধারা কষ্টে থাকবে, তাদের খাবার থাকবে না, বাড়ি থাকবে না, এটা হতে পারে না। আমি যতদিন সরকারে আছি, ততদিন এটি কখনও হতে পারে না। কাজেই তাদের প্রত্যেকের থাকার ব্যবস্থা করে দেবো। আমরা মুক্তিযোদ্ধাদের জীবন-জীবিকার ব্যবস্থা করে দিচ্ছি। তাদের আমরা রাষ্ট্রীয় সম্মান দিচ্ছি। তাদের কল্যাণে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছি এবং তা অব্যাহত থাকবে।’

গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনসহ দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা প্রান্তে যুক্ত হয়ে মতবিনিময় করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি গাজীপুরের কালিয়াকৈর, কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী, খুলনার পাইকগাছা, চাঁদপুরের হাইমচর, মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হন। এর আগে, প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি বোর্ডের ৬৬তম সভায় অংশ নেন।

এমন আরো তথ্য পেতে চোখ রাখুন: http://facebook.com/rajtvbd

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button